বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৪, ২০২১




হাজীগঞ্জে চার মৃত্যুর কথা স্বীকার করেন ডিআইজি আনোয়ার হোসেন

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সাম্প্রতিক কুমিল্লা নগরীর নানুয়ার দিঘিরপাড়ের একটি দুর্গাপূজার মণ্ডপে হনুমান মূর্তির কোলে পবিত্র কোরআন শরিফ রাখার ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনাকে কেন্দ্রকরে ১৩ অক্টোবর বুধবার রাতে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে কয়েকটি পূজামণ্ডপের সামনে পুলিশের সাথে জনতার সংঘর্ষ ঘটেছে। এতে মারার্তক আকারে হতাহতের ঘটনা ঘটলেও পুলিশ মৃত্যুর বিষয়টি নিয়ে চুপ থাকে।

১৪ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে মন্দিরে হামলা ও হতাহতের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চট্রগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে চার জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলেন, মানুষের জানমাল নিরাপত্তায় অসাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ঠেকাতে এবং পুলিশ নিজেদের আত্মরক্ষার্থে গুলি চালাতে বাধ্য হয়েছে। তার পরেও আমরা বিষয়টি ক্ষতি দেখবো। মানুষ যেন নিরাপত্তা বোধ করে চলাচল করতে পারে সেই পরিবেশ নিশ্চিত করে কাজ করে আসছে পুলিশ।

এ সময় চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছিরউদ্দিন ভৃঁইয়া, সাধারন সম্পাদক আবু নঈম পাটোওয়ারী দুলাল, হাজীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী মাঈনুদ্দিন, নির্বাহী কর্মকর্তা মোমেনা আক্তার, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল, হাজীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহবুব-উল আলম লিপনসহ আওয়ামী লীগ ও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দ এবং হিন্দু সম্পাদয়ের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category