বৃহস্পতিবার, জানুয়ারি ২৩, ২০২০




৭৩বছর যাবৎ মতলবে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে ঐতিহ্যবাহী নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়

সোহেল সরকারঃ ৭৩বছর যাবৎ মতলবে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে ঐতিহ্যবাহী নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়। বিদ্যালয়টি ১৯৪৮ সালে মরহুম আঃ কাদের মুন্সি মতলব উত্তর উপজেলার ১১নং ফতেপুর পশ্চিম ইউনিয়নের নাউরী গ্রামে প্রতিষ্ঠিত করেন। প্রতিষ্ঠার সময় বিদ্যালয়টিতে প্রথম প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করেন মোঃ ওসমান গনি এমএ এবং সভাপতি হিসাবে দায়িত্বভার গ্রহন করেন মোঃ ইসমাইল সরকার।

শিক্ষার্থীদের গুনগত মান উন্নয়নের লক্ষ্যে শুরু থেকেই দারুন সতর্ক ও সচেতন ছিলেন তখনকার সময়ের বিদ্যালয় সংশ্লিষ্টরা। ধীরে ধীরে বিদ্যালয়টি দারুন জনপ্রিয়তা পেতে লাগল। দীর্ঘ পথচলার ধারাবাহিকতায় বর্তমান সময়ে উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যালয় হিসাবে সুখ্যাতি অর্জন করে। মোট ৩.৮৯ একর জমির ওপর গড়েউঠা বিদ্যালয়টির রয়েছে পাঁচটি ভবন যার মধ্যে একটি তিনতলা, তিনটি দু-তলা ও একটি একতলা বিশিষ্ট ভবন। শত কক্ষের বিদ্যালয়টিতে রয়েছে আধুনিক সকল সুযোগ সুবিধা যার মধ্যে বিজ্ঞানাগার, লাইব্রেরী ও ডিজিটাল শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাব। বিদ্যালয়ের রয়েছে নিজস্ব ১৫০ জন ছাত্রের ছাত্রাবাস সুবিধা।

১৯৯৮ সালে এসএসসি ও ২০১০ সালে জেএসসি সমাপনী পরীক্ষার পঞ্চম কেন্দ্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয় মতলব উত্তর উপজেলায়। বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে প্রায় ১৭শ শিক্ষার্থী রয়েছে। মোট ২৪ জন শিক্ষকদের মধ্য ১২ জন শিক্ষক এমপিও ভুক্ত। বিদ্যালয়ে বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পালন করছেন একেএম তাজুল ইসলাম এমএবিএড ও সভাপতির দায়িত্বে আছেন আলহাজ্ব এসএম সিরাজুল ইসলাম।

ঐতিহ্যবাহী এই বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে ইঞ্জিনিয়ার, ডাক্তার, ব্যাংকার, রাজনীতি ব্যাক্তিত্ব ও দেশ সেবক হয়েছেন অনেকেই। প্রতিবছর এসএসসি ও জেএসসি পরীক্ষার ফলাফল যথেষ্ট প্রশংসনীয়। এর মধ্যে ২০১২ সালের জেএসসি পরীক্ষায় ২৮ টি এ+ সহ পাশের হার শতভাগ। ২০১৪ সালে ২৯২ জন কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৩৬টি এ+ পেয়ে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেন কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে। ২০১২ সালের এসএসসি পরীক্ষায় পাশের হার ৯৬.২০% এবং ২০১৪ সালে ৯৪.৪১% যা মতলব উত্তর উপজেলার গুলোর মধ্যে অন্যতম।

মতলব উত্তরে ৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে “জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৬” পদক এবং ২০১৯ সালে ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৯’ পদক পেয়ে শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের খেতাব অর্জন করেন। সবুজ ঘাস সমৃদ্ধ বিশাল খেলার মাঠটি বিদ্যালয়ের সম্মুখে থাকায় সৌন্দর্য্যের অরন্য হিসেবে খ্যাত বিদ্যালয়ের পরিবেশ।

বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা আয়োজনে রয়েছে ভিন্নতা। চারটি হাউজে বিভক্ত খেলোয়ারদের মধ্যে চলে তুমুল প্রতিযোগিতা। প্রতি বছর চ্যাম্পিয়ন হয় এক একটি হাউজ। বিদ্যালয়ের ঐতিহ্যের ধারা বজায় রেখে নাউরী আহম্মদীয়া উচ্চ বিদ্যালয়কে একটি আধুনিক বিশ্বমানের শিক্ষা কেন্দ্র গড়ে তুলতে অভিভাবক, প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রী ও স্থানীয় সকলের সহযোগিতা কামনা করেন বিদ্যালয়ের শিক্ষকমন্ডলী ও কার্য নির্বাহী পরিষদের সদস্যবৃন্দ।

এই বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একেএম তাজুল ইসলাম জানান, স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব এড. নুরুল আমিন রুহুলসহ এলাকার সকল শ্রেনী-পেশার মানুষের আন্তরিকপূর্ন সহযোগীতার কারনেই স্কুলটি ভাল ফলাফল করে আসছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category