মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৪, ২০১৮




৪ ডিসেম্বর মতলব মুক্ত দিবস

রেদোয়ান আহমেদ জাকিরঃ  আজ ৪ ডিসেম্বর, মতলব মুক্ত দিবস। ১৯৭১ সালের এদিনে দখলদার পাকিস্তানী বাহিনী মতলবের মাটি থেকে বিতাড়িত হয় এবং মতলব স্বাধীন হয়। ১৯৭১ সালের ৮ এপ্রিল ঢাকা থেকে সড়কপথে পাকবাহিনী মতলবে আসে এবং থানা দখল করে এখানে তাদের ক্যাম্প স্থাপন করে। তারা মতলবের বিভিন্ন এলাকায় নির্বিচারে মানুষ হত্যা করে এবং ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালায়। পাকিস্তানী সৈন্য ও তাদের এ দেশীয় দোসররা মতলবের এনায়েতনগর গ্রামে ৫ হাজার ঘর-বাড়ি জ্বালিয়ে দেয় এবং বহু নারীর সম্ভ্রম কেড়ে নেয়। তখন মুক্তিযোদ্ধারা মতলবের খিদিরপুর, বহরী, বাগানবাড়ি, মোহন ও এনায়েতনগর এলাকায় ৫টি ঘাঁটি তৈরি করে হানাদার বাহিনীর মোকাবেলা করে।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধারা দখলদার পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে লালারহাট, বোয়ালমারি এবং নাগদাসহ আরো কয়েকটি স্থানে সম্মুখযুদ্ধে লিপ্ত হয়। মুক্তিযোদ্ধা এবং সর্বস্তরের জনগণের প্রবল প্রতিরোধের মুখে অবশেষে ৪ ডিসেম্বর পাক দখলদারবাহিনী নদীপথে মতলব ছাড়তে বাধ্য হয়। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মতলবের ১৮ জন মু্িক্তযোদ্ধা শহীদ হন।

মতলব মুক্ত দিবস উপলক্ষে অন্যান্য বছরের মতো এবারও মতলব দক্ষিণ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ব্যাপক কর্মসূচি পালন করবে। এ উপলক্ষে ৪ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে বিজয় ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, ৯টা ৩০ মিনিটে দীপ্তবাংলা পাদদশে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ১০টায় বর্ণাঢ্য র‌্যালি, ১০টা ৩০ মিনিটে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন জেলা কৃষক লীগের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন প্রধান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ ওয়াদুদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মতলব দক্ষিণ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সিরাজুল মোস্তফা তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা এএইচএম গিয়াস উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক বিএইচএম কবির আহমেদ, মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএমএস ইকবাল, মতলব পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন লিটন, জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক আহ্বায়ক মিজানুর রহমান খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ শওকত আলী বাদল, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শঙ্কর রাও নাগ, মতলব সরকারি ডিগ্রি কলেজের (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ মোঃ আবুল কালাম আজাদ ও রয়মনেননেছা মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ সফিকুল ইসলাম।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উদ্যাপন কমিটির আহ্বায়ক মোঃ শাহিদুল ইসলাম। স্মৃতিচারণ করবেন মুক্তিযুদ্ধকালীন স্বাধীনবাংলা ছাত্র-সংগ্রাম পরিষদের বৃহত্তর মতলবের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা নূরুল ইসলাম নূরু। দিবসটি উদ্যাপনের লক্ষ্যে বেশ কয়েকটি উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে সকলের উপস্থিতি ও সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন উদ্যাপন কমিটির সদস্য সচিব ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মোঃ শহিদ উল্লাহ সায়েদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category