রবিবার, জানুয়ারি ৩১, ২০২১




হাজীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে মহিলাসহ ১৬ কাউন্সিলের মধ্যে ১৩ জনই নতুন মুখ

হাজীগঞ্জ প্রতিনিধিঃ হাজীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে মহিলাসহ ১৬ জন কাউন্সিলের মধ্যে ১৩ জনই নতুন মুখ নির্বাচিত হয়েছেন।

হাজীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে নতুন ও তরুণ প্রার্থীরাই এবার বিজয়ে অগ্রাধীকার পেয়েছে। পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডে পুরাতনদের মাঝ থেকে মাত্র ৩জন কাউন্সিলর বিজয়ী হয়েছে আর সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ৪জনই নতুন মুখ।

সংরক্ষিত নারী কাউন্সিল পদে ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডে রোকেয়া বেগম আনারস প্রতীকে ৪৫৮২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী কাজলী রাণী সরকার চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ৩৪২৮ ভোট।

৪, ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডে মমতাজ বেগম মুক্তা জবা ফুল প্রতীকে ৪৪৯২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাহিদা বেগম আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৩২৪০ ভোট।

৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে মিনু আক্তার মিনু জবা ফুল প্রতীকে ২০৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জোহরা বেগম পেয়েছেন টেলিফোন প্রতীকে ১৬৬৪ ভোট।

১০, ১১ ও ১২নং ওয়ার্ডে নাজমুন নাহার আক্তার ঝুমু আনারস প্রতীকে ২৮১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিবি হাওয়া চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ১১৬৪ ভোট।

সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১নং ওয়ার্ডে মাইনুদ্দিন পাঞ্জাবী প্রতীকে ২০২৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আবু তাজের লিটন ভূঁইয়া ব্লাকবোর্ড  প্রতীকে পেয়েছেন ৫৪১ ভোট।

২নং ওয়ার্ডে আলাউদ্দিন মুন্সী ডালিম প্রতীকে ৬১৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রাধাকান্ত রাজু গাজর প্রতীকে পেয়েছেন ৫৯৩ ভোট।

৩নং ওয়ার্ডে মোহসিন ফারুক বাদল পাঞ্জাবী প্রতীকে ১২৪৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রায়হানুর রহমান জনি টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে পেয়েছেন ৮৭১ ভোট।

৪নং ওয়ার্ডে মোহাম্মদ জাহিদুল আযহার আলম বেপারী টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে ১৭৯৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম উটপাখি প্রতীকে পেয়েছেন ১২০১ ভোট।

৫নং ওয়ার্ডে সুমন তপদার পাঞ্জাবী প্রতীকে ১৫৬০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী রিটন চন্দ্র সাহা টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে পেয়েছেন ১২৮১ ভোট।

৬নং ওয়ার্ডে মোহাম্মদ শাহআলম উটপাখি প্রতীকে ১৩৩১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোহাম্মদ রাসেল মিয়া টেবিল ল্যাম্প প্রতীকে পেয়েছেন ১১০০ ভোট।

৭নং ওয়ার্ডে কাজী মনির উটপাখি প্রতীকে ২২২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এমরান মুন্সী পাঞ্জাবী প্রতীকে পেয়েছেন ৯৫৯ ভোট।

৮নং ওয়ার্ডে হাজী মোঃ কবির হোসেন ডালিম প্রতীকে ১২১০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মুরাদ হোসেন মিরন পাঞ্জাবী প্রতীকে পেয়েছেন ৫৯৯ ভোট।

৯নং ওয়ার্ডে মোঃ আজাদ হোসেন উটপাখি প্রতীকে ১৩৮০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোস্তফা কামাল পাঞ্জাবী প্রতীকে পেয়েছেন ১২৮০ ভোট।

১০নং ওয়ার্ডে মোঃ বিল্লাল হোসেন পাঞ্জাবী প্রতীকে ২০২১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী খোরশেদ আলম ভুট্টো ডালিম প্রতীকে পেয়েছেন ৬৫৯ ভোট।

১১নং ওয়ার্ডে মোঃ সাদেকুজ্জামান টেবিল ল্যাম্ব প্রতীকে ৭৬৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী শুকু মিয়া পানির বোতল প্রতীকে পেয়েছেন ৩২৮ ভোট।

১২নং ওয়ার্ডে মোঃ শাহআলম উটপাখি প্রতীকে ৬৮৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী নূরুল ইসলাম বেপারী পানির বোতল প্রতীকে পেয়েছেন ৫৩৪ ভোট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category