বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর ৩, ২০২০




রেকর্ড দামে ম্যানচেস্টার সিটিতে লিওনেল মেসি!

মো. নাছির উদ্দীন : সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে রেকর্ড মূল্য ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানসিটিতে যাচ্ছেন লিওনেল মেসি‍। গোলডটকম একটি বৃটিশ সংবাদ মাধ্যমের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে। স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার সঙ্গে প্রায় দুই দশকের সম্পর্কের ইতি টানছেন আর্জেন্টাইন তারকা মেসি। গত দুই দশকে দলের সব ধরনের সাফল্যে মেসির অবদান অনস্বীকার্য।
গত মৌসুম থেকেই আলোচনায় আসে লিওনেল মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার গুঞ্জন। শুরুতে দল ছাড়ার গুঞ্জনে কান দেয়নি কেউই, সবার ধারণা ছিল বার্সেলোনাতেই ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন। তবে সম্প্রতি শেষ হওয়া চ্যাম্পিয়নস লিগের সেমিতে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে বিধ্বস্ত হওয়ার পর আর মেসিকে আটকানো সম্ভব হলো না। রেকর্ডমূল্য ৭০০ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দিচ্ছেন এই আর্জেন্টাইন।
আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসিকে এর আগে একাধিকবার দলে ভেড়ানোর চেষ্টা চালিয়েছিল ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি। মেসি বার্সেলোনা ছাড়তে রাজি না হওয়ায় অপূর্ণই থেকে যায় সিটিজেনদের সেই চাওয়া। তবে এবার ছয়বারেরর বর্ষসেরা ফুটবলারকে ইতিহাদে আনার সবচেয়ে ভাল সুযোগ ম্যানচেস্টারের আকাশী-নীলদের।
গোলডটকম একটি বৃটিশ সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, ম্যানচেস্টার সিটির প্রস্তাবে রাজি লিওনেল মেসি। পাঁচ বছরের চুক্তিতে মেসিকে নিতে চায় সিটি। চুক্তি অনুযায়ী প্রথম তিন বছর মেসি খেলবেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে। শেষের দুইবছর তিনি খেলবেন সিটিজেনদের মালিকানাধীন আরেক ক্লাব নিউইয়র্ক সিটিতে। যুক্তরাষ্ট্রের মেজর সকার লীগে (এমএলএস) খেলে নিউইয়র্ক সিটি। বৃটিশ সংবাদমাধ্যমটি মেসির একটি ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে,ম্যান সিটির কোচ পেপ গার্দিওলা মেসির সেরাটা বের করে আনতে পেরেছেন। মেসি চাইছেন আবারো তিনি গার্দিওলার সঙ্গে জুটি বেঁধে আগের সেই সোনালি দিন ফিরিয়ে আনতে।
লিওনেল মেসি ছয়বার ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার হয়েছেন। এরমধ্যে চারবারই জিতেছেন গার্দিওলা বার্সেলোনার কোচ থাকাকালীন। কাতালানদের জার্সিতে মেসির জেতা চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লীগের দুটি এসেছে গার্দিওলা যখন বার্সেলোনার কোচ ছিলেন। মেসির বিশ্বসেরা হয়ে ওঠার শুরুটা গার্দিওলার হাত ধরেই। ২০০৮ থেকে ২০১২ পর্যন্ত পেপ গার্দিওলার অধীনে ১৫টি শিরোপা জিতেছে বার্সেলোনা। যাতে বড় অবদান মেসির।
ক্লাবে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করাননি। নতুন ম্যানেজার রোনাল্ড কোম্যানের অনুশীলনেও যাননি। বুরোফ্যাক্সে ক্লাব ছাড়তে চাওয়ার ইচ্ছে জানানোর পরেই লিওনেল মেসি বুঝিয়ে দিচ্ছিলেন, কোনো অবস্থাতেই আর তিনি বার্সেলোনায় থাকবেন না। বার্সেলোনার ভঙ্গুর অবস্থান, পরিকল্পনাহীন ভবিষ্যৎ প্রকল্প এবং বোর্ড কর্তাদের সঙ্গে মতের অমিল হওয়ায় গত ২৫ আগস্ট ক্লাব ছাড়ার ঘোষণা দেন মেসি।
মেসি বার্সেলোনা ছাড়তে চাইলেও, তাকে ধরে রাখতে ক্লাব কর্তৃপক্ষ শেষ অবধি চেষ্টা চালিয়ে গেছে। মেসির বাবা ও বার্সা কর্তাদের মধ্যে বৈঠক হলেও তা ফলপ্রসূ হয়নি। দলবদলের ক্ষেত্রে ‘ফ্রি ট্রান্সফার’ চেয়েছিলেন মেসি, কিন্তু রিলিজ ক্লজ হিসেবে ৭০০ মিলিয়ন ইউরো দাবি করছে বার্সেলোনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category