রবিবার, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২০




রাওয়ালপিন্ডি টেস্ট : ইনিংস পরাজয় এড়াতে বাংলাদেশের প্রয়োজন আরও ৮৬ রান

মো. নাছির উদ্দীন : রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে প্রথম ইনিংসে রানের পাহাড় গড়ে তোলে স্বাগতিক পাকিস্তান। শান মাসুূদ ও বাবর আজমের সেঞ্চুরিতে সবক’টি উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান সংগ্রহ করে ৪৪৫ রান। আর এতে করেই প্রথম ইনিংসে ২১২ রানের লিড পায় স্বাগতিকরা। জবাবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিন শেষে ৬ উইকেট ১২৬ রান সংগ্রহ করে সফরকারী বাংলাদেশ। ইনিংস পরাজয় এড়াতে ৪ উইকেট হাতে থাকা বাংলাদেশের প্রয়োজন আরও ৮৬ রান। দিন শেষে অধিনায়ক মুমিনুল হক ৩৭ এবং লিটন দাস শূণ্য রানে অপরাজিত রয়েছেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে ২১২ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ভাল শুরু এনে দেন দুই টাইগার ওপেনার সাইফ হাসান ও তামিম ইকবাল। প্রথম ইনিংসে শূন্য রানে সাজঘরে ফেরা সাইফ হাসান দ্বিতীয় ইনিংসে নামের পাশে যোগ করেন ১৬ রান। উদ্বোধনী জুটি থেকে আসে ৩৯ রান। তামিম-সাইফের জুটি ভাঙেন পাকিস্তানের ১৬ বছর বয়সী পেসার নাসিম শাহ।

সাইফ ফিরে গেলে নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন তামিম ইকবাল। চা বিরতি পর্যন্ত সামাল দিয়েছিলেনও, সে পর্যন্ত দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে তামিম-শান্ত তোলেন ১৪ রান। তবে চা-বিরতি থেকে ফিরেই ইয়াসির শাহর বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে ব্যক্তিগত ৩৪ এবং দলীয় ৫৩ রানে সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল।

এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতে দলের হাল ধরেন অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং নাজমুল হোসেন শান্ত। ৫৩ রানে দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ তৃতীয় উইকেট জুটিতে অর্ধশত রানের জুটি গড়ে দলীয় শতক পূর্ণ করেন। মুমিনুলের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়ে ব্যক্তিগত ৩৮ রানে ফিরে যান নাজমুল হোসেন শান্ত। এরপর নাইটওয়াচম্যান হিসেবে উইকেটে আসেন তাইজুল ইসলাম। কিন্তু নাসিম শাহ’র আগুন ঝরা বোলিংয়ে ফিরে যান তাইজুল, মাহমুদুল্লাহ আর মোহাম্মদ মিঠুন ফিরে গেলে হ্যাটট্রিক পূর্ণ হয় ১৬ বছর বয়সী নাসিম শাহর।

দিনের শেষ দিকে নাসিম শাহ্‌র পেস আর ইয়াসির শাহ্‌র ঘূর্ণিতে বাংলাদেশ ১২৪/২ থেকে ১২৬/৬ পরিণত হয়। শেষ ২ রানে ৪ উইকেট হারিয়ে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। তাইজুল, মাহমুদুল্লাহ এবং মিঠুন তিনজনই আউট হয়েছেন কোনো রান না করেই। আর তাতেই দিনের শেষ ভাগটা নিজেদের করে নিয়ে রাওয়ালপিন্ডির প্রথম টেস্ট জয়ের সুবাস পাচ্ছে স্বাগতিক পাকিস্তান।

প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের করা ২৩৩ রানের জবাবে শান মাসুদ ও বাবর আজমের সেঞ্চুরি এবং হারিস সোহেলের হাফসেঞ্চুরির ওপর ভর করে ৪৪৫ রানে অলআউট হয়ে যায় স্বাগতিকরা। সেই লিড নেয় ২১২ রানের।

৩ উইকেট হারিয়ে ৩৪২ রান নিয়ে রাওয়ালপিন্ডিি টেস্টের তৃতীয় দিনের খেলস শুরু করে দ্বিতীয় সেশনেই রাহি-রুবেলের বোলিং তোপে অল আউট হয়ে যায় স্বাগতিক পাকিস্তান।

সফরকারীদের হয়ে আবু জায়েদ রাহি এবং রুবেল হোসেন নেন তিনটি করে উইকেট। আর পাকিস্তানের হয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ ১৪৩ রান করেন বাবর আজম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category