শনিবার, ডিসেম্বর ২২, ২০১৮




‘যে রেকর্ডে’ ধরাছোঁয়ার বাইরে সাকিব!

ক্রীড়া প্রতিবেদক: সাকিব আল হাসান, বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশের  জীবন্ত বিজ্ঞাপন। মাঠে ও বাইরে যে সমানভাবে আলোচিত-সমালোচিত। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার শব্দটা যেন তার নামের পাশে সেঁটেই গেছে। সেই সাকিব আল হাসান এখন বিরল এক ডাবল সেঞ্চুরির সামনে। যে রেকর্ডে এখন ধরাছোঁয়ার বাইরেও তিনি। এক ভেন্যুতে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি তিন ফরমেটে আগেই হয়েছেন সর্বাধিক উইকেটের মালিক। মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে তিন ফরমেটের ক্রিকেটে তার শিকার ১১৩ ম্যাচে ১৯৬ উইকেট। ২০০৬ এর অভিষেকের পর থেকে মিরপুর মাঠেই যেন স্থাপন করেছেন তার রাজত্ব।

২০০৬ এই সাকিব আল হাসানের অভিষেক হয় ওয়ানডে ক্রিকেটে। জিম্বাবুয়ের হারারে স্পোর্টস ক্লাব মাঠে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন তিনি। সে বছরই তিনি মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে প্রথম ওয়ানডে খেলেন। এরপর সে বছরই নভেম্বরে খুলনা শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে দেশের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অভিষেক হয় তার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। ঠিক তার পরের বছরই তার টেস্ট অভিষেকটাও চট্টগ্রামে ভারতের বিপক্ষে। সেই সিরিজের  মিরপুর মাঠে খেলেন প্রথম টেস্টও। তবে এই মাঠে তার প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ ২০১১তে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। তবে ধীরে ধীরে মিরপুর মাঠই যেন তার শিকারের সেরা ঠিকানা হয়ে ওঠে। বলতে গেলে মিরপুর মাঠ যেন সাকিবের  তৈরি করা ব্যাটসম্যানদের বদ্ধভূমি।
গেল ১২ বছরে মিরপুর মাঠে ১৭ টেস্টে সাকিবের শিকার ৬৩ উইকেট। যদিও টেস্টে এক সিংহলিজ স্পোর্টস গ্রাউন্ডসেই মুরালিধরনের শিকার ১৬৬ উইকেট। তবে সাকিবের জন্য ওয়ানডেতে মিরপুরের উইকেটই যেন ভীষণ পয়মন্ত। এখানে ৮০ ম্যাচে তার শিকার ১১৩ উইকেট। তবে ওয়ানডে ক্রিকেটে এক মাঠে সর্বোচ্চ ১২২ উইকেটের মালিক পাকিস্তানের ওয়াসিম আকরাম। শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ১৯৮৫ থেকে ২০০২ পর্যন্ত ৭৭ ম্যাচে এই কীর্তি গড়েন আকরাম। তারপরই আছেন একই মাঠে একই সময়ে ৬১ ম্যাচে ১১৪ উইকেট নেয়া ওয়াকার ইউনুস। তাদের পরই সাকিবের অবস্থান। মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে সাকিবের পর ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেটের মালিক মাশরাফি বিন মুর্তজা। ৬৪ ম্যাচে ৯৪ উইকেট নিয়ে তার অবস্থান ওয়ানডেতে একই ভেন্যুতে সর্বাধিক উইকেট নেয়ার তালিকাতে চতুর্থ। এই মাঠে বাংলাদেশের হয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক স্পিনার আবদুর রাজ্জাক। ৫২ ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ৭৫ উইকেট।
অন্যদিকে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে একই ভেন্যুতে সর্বাধিক উইকেটের মালিকও বাংলাদেশের একজন। তবে সাকিব নন, তিনি পেসার আল আমিন হোসেন। জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া এই প্রতিভাবান পেসার মিরপুর শেরেবাংলা মাঠে ২০১৩ থেকে ২০১৬ পর্যন্ত ১৩ ম্যাচে নিয়েছেন ২৫ উইকেট। তারপরই আছেন পাকিস্তানের সোহেল তানভির। দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট মাঠে তার শিকার ১৫ ম্যাচে ২২ উইকেট। তারপরই আছেন সাকিব। মিরপুর মাঠেই তিনি নিয়েছেন এখন পর্যন্ত ১৬ ম্যাচে ২২ উইকেট। সবশেষ চলতি ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মিরপুর মাঠে তিনি তুলে নিয়েছেন একাই ৫টি উইকেট। এখন সিরিজের শেষ ম্যাচে তার সামনে সুযোগ রয়েছে নিজেকে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার।
মিরপুর শেরেবাংলা মাঠ নিয়ে আছে নানা আলোচনা-সমালোচনাও। বিশেষ করে এই মাঠের উইকেটকে এক বাক্যে দেশের সব অধিনায়কই বলেন রহস্যময়। আবার কেউ কেউ এই উইকেট নিয়ে নেতিবাচক ধারণাও পোষণ করেন। কিন্তু সাকিব তার সেরা ভেন্যু নিয়ে ভিন্ন মত পোষণ করবেন এটাই স্বাভাবিক। কারণ বল হাতেই নয় এই ভেন্যুতে সর্বাধিক রানের মালিকও তিনি। তিন ফরমেটে তার সংগ্রহ ১১৩ ম্যাচে ৪০১৭ রান। বিশ্বে একই ভেন্যুতে সর্বাধিক রানের মালিকের তালিকাতে সেরা পাঁচেই আছেন বাংলাদেশের ৩ জন। সাকিবের পর আছেন তামিম ও মুশফিকুর রহীম। চতুর্থ স্থানে আছেন অস্ট্রেলিয়ার রিকি পন্টিং। মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৫৭ ম্যাচে ৩৪৬৭ রান। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে জয়ের পর সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেন, ‘আমি মিরপুরের উইকেট খারাপ বলতে পারবো না। কারণ আমার ক্যারিয়ারের অর্ধেকই এখানে। বোলিং-ব্যাটিং সবই (অর্জন) এখানে। আমি খারাপ কীভাবে বলি। আমার কাছে মিরপুরের উইকেটই ভালো!’
এক ভেন্যুতে সর্বাধিক উইকেট ( তিন ফরম্যাট)
খেলোয়াড়    সময়    ম্যাচ    ভেন্যু      উইকেট    গড়
সাকিব আল হাসান (বাংলাদেশ)    ২০০৬-২০১৮    ১১৩    শেরেবাংলা     ১৯৬    ২৬.২৮
মুত্তিয়া মুরালিধরন (শ্রীলঙ্কা)    ১৯৯২-২০১১    ৪৬    সিংহলিজ    ১৮৮    ২০.৪৪
ওয়াকার ইউনুস (পাকিস্তান)    ১৯৮৯-২০০২    ৬৫    শারজাহ    ১২৬    ২০.৪৪
হিথ স্ট্রিক ( জিম্বাবুয়ে)    ১৯৯৪-২০০৫    ৪৯    হারারে     ১২৬    ২৩.৮৩
জেমস অ্যান্ডারসন (ইংল্যান্ড)    ২০০৩-২০১৮    ৪১    লর্ডস    ১২৫    ২৬.২৬

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category