মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮




মেসিময় রাত

ক্রিড়া ডেস্কঃ  ভুলে যাওয়ার মতো একটা বিশ্বকাপ গেছে, ব্যালন ডি’অরে ৫ নম্বরে নেমেছে তাঁর নাম। কিন্তু বার্সেলোনার জার্সিতে প্রতিপক্ষের সামনে এখনো সেই পুরনো মেসি। গোলের পর গোল করে চলেছেন, ম্যাচের পর ম্যাচ প্রতিপক্ষ তাঁর সামনে নতজানু। পরশু ক্যারিয়ারের ৪৯তম হ্যাটট্রিকে বার্সাকে লেভান্তের বিপক্ষে জেতালেন ৫-০-তে। অন্য দুটি গোলেও তাঁর অ্যাসিস্ট।

প্রতি ম্যাচেই রেকর্ডের নতুন দিগন্ত স্পর্শ করছেন মেসি। এই যেমন এই মুহূর্তে ইউরোপের সেরা পাঁচ লিগে তাঁর চেয়ে বেশি গোল (১৪), অ্যাসিস্ট (১০) নেই কারো। পরশুর হ্যাটট্রিকে ২০১৮-এর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে ৫০ গোল পূর্ণ করে ফেলেছেন। গত ৯ বছরের মধ্যে ৮ বারই এমন অর্জন এই খুদে জাদুকরের। ম্যাচ শেষে আরো অনেক দিনের মতো এদিনও তাই বাক্হারা এর্নেস্তো ভালভের্দে মেতেছেন মেসি বন্দনায়, ‘ওকে নিয়ে নতুন করে আর কী বলা যায়, সে-ই খেলায়, জেতায়ও।’ গত মৌসুমে বার্সার অপরাজিত থেকে লিগ শেষ করার অনন্য রেকর্ডটা গড়া হয়নি ৩৭তম ম্যাচে এই লেভান্তের কাছে ৫-৪ গোলে হেরে। মেসি খেলেননি সেই ম্যাচে, পরশু মাঠে নেমে যেন তারই শোধ নিলেন গোলের মালা গেঁথে। ৩৫ মিনিটে লুই সুয়ারেসকে দিয়ে প্রথম গোল করিয়েছেন, তাঁর বাঁদিক থেকে পাঠানো ক্রসে উরুগুইয়ান স্ট্রাইকারের ভলি পৌঁছে যায় জালে। বিরতির আগেই সের্হিয়ো বুশকেেজর থ্রু পাস ধরে একাই বক্সে ঢুকে গোল করেছেন। বিরতি থেকে ফিরে ইহোর্দি আলবার পাসে বক্সের ওপর থেকে বাঁ পায়ে লক্ষ্যভেদ করেছেন। ৬০ মিনিটে আর্তুরো ভিদালের ক্রসে ট্যাপ ইনে পূর্ণ করেছেন হ্যাটট্রিক। লেভান্তের দুর্দশার সেখানেই শেষ নয়, খেলা শেষ হওয়ার আগে কাট ব্যাকে জেরার্দ পিকেকে দিয়ে করিয়েছেন পঞ্চম গোলটি। এই জয়ে সেভিয়ার সঙ্গে ৩ পয়েন্টের ব্যবধানে শীর্ষেই আছে বার্সা। লা লিগায় বার্সার হয়ে মেসির তা ৩২৩তম জয়। এটিও নতুন রেকর্ড, সবচেয়ে বেশি জয়ের এই রেকর্ডে এদিন তিনি ছাড়িয়ে গেছেন জাভি এর্নান্দেসকে। ব্যালন ডি’অর বা ফিফার পুরস্কারে

যা-ই থাক, এই মেসিকে তাই সেরা মানতে একটুও দ্বিধা নেই ক্লাবের সাবেক তারকা ও বর্তমান পরিচালক গুইলের্মো আমর, ‘মেসি কখনোই হাল ছেড়ে দেয় না, সে প্রতি ম্যাচেই খেলে একজন বিশ্বসেরার মতো। প্রতি ম্যাচেই সে উন্নতি করে।’

ওদিকে রবিবার রাতে ইংল্যান্ডে প্রশংসার বন্যায় ভেসেছেন জেরদান শাকিরি। লিভারপুল-ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ম্যাচে মোহামেদ সালাহসহ পার্থক্য গড়ে দেওয়ার মতো অনেকেই ছিলেন। কিন্তু বেঞ্চ থেকে উঠে জোড়া গোল করে মর্যাদার এই ম্যাচ জিতিয়েছন এ মৌসুমেই মাত্র ১৫ মিলিয়ন ইউরোতে অ্যানফিল্ডে আসা শাকিরি। যে জয়ে লিভারপুলের শিরোপার আশা জেগে উঠেছে বেশ ভালোভাবেই। তবে ইয়ুর্গেন ক্লপ শান্ত থাকছেন, আমরা এখনই চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাইনি। আমাদের মূল কাজ হবে এখন পয়েন্ট সংগ্রহ করা এবং ম্যাচ জেতা। এখনো পর্যন্ত তা ভালভাবেই করতে পারছি আমরা।’ ওদিকে হোসে মরিনহো আবারও সমালোচনায় বিদ্ধ। ১৯ পয়েন্ট পিছিয়ে তারা লিভারপুলের চেয়ে। ম্যাচে অলরেডদের ২৪ শটের বিপরীতে তাদের শট ছিল মাত্র ৫ টি। তবে সাবেক তারকা রায়ান গিগস বলেছেন, ‘সেরাটা দিতে না পারায় দায় নিতে হবে খেলোয়াড়দেরও।’ গোলডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category