বুধবার, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০




মতলব উত্তরে বসতঘরের সামনে বেড়া দিয়ে গাছ লাগিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি।। অস্ত্র উঁচিয়ে আক্তারের তান্ডব

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের দেওয়ানকান্দি গ্রামের আবুল কালামের বসতঘরের সামনে বেড়া দিয়ে গাছ লাগিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা হয়েছে।

জানা যায়, গত শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর)  সকাল ভোরে  আবুল কালাম এর বসতঘরের সামনে অবৈধভাবে জোরপূর্বক বেড়া দিয়ে গাছের চারা রোপণ করেছে মৃত সৈয়দ হোসেনের পুত্র বিল্লাল, গোলাম হোসেন, জসিম।

গাছের চারা লাগানোর সময়ে আবুল কালাম বাড়িতে না থাকায় তার স্ত্রী নাজমা বেগম গোলাম হোসেন গংদের বাধা দিলে তারা নাজমা বেগম কে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

এরপর নাজমা বেগম তার স্বামী আবুল কালাম কে খবর দিলে তিনি এলাকার গন্যমান্য লোকজনকে জানালে তারা আইনের আশ্রয় নিতে বলেন। পরে সকাল ১০টার দিকে আবুল কালাম মতলব উত্তর থানায় একটি অভিযোগ নিয়ে যায়। এরমধ্যে বাড়িতে একা থাকা আবুল কালামের স্ত্রী নাজমা বেগম কে নাউরী গ্রামের মৃত রাজ্জাক প্রধানের ছেলে আকতার হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে তার পিস্তল দেখিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে । তখন নাজমা বেগম ডাক চিৎকার দিলে রাস্তার পথচারী কামরুল এগিয়ে গিয়ে গোলাম হোসেন কে বেড়া দেওয়ার বিষয় জিজ্ঞেস করলে কামরুল কে গোলাম হোসেন হাতে থাকা দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আঘাত করেন। তখন অস্ত্র উঁচিয়ে আক্তার নাজমা বেগম কে আঘাত করে এবং গুলি করে মেরে ফেলার হুমকি দেয়।

আহত কামরুল কে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়।

উক্ত ঘটনা কে কেন্দ্র আবুল কালাম এর অভিযোগের বিষয়ে মতলব উত্তর থানা তাৎক্ষণিক সমাধান না করায় আবুল কালামের স্ত্রী নাজমা বেগম মঙ্গলবার (৮সেপ্টেম্বর)চাঁদপুর জজকোর্টে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মতলব উত্তর থানা কে এফআইআরে অন্তর্ভুক্ত করতে নির্দেশ দেন।

উল্লেখ্য, এই ঘটনাকে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে ভুক্তভোগী আবুল কালাম এর মামাতো ভাই চাঁদপুর জজকোর্ট এর আইনজীবী সেলিম মিয়া সহ ১১জনের বিরুদ্ধে অবৈধ প্রভাব বিস্তার করে মতলব উত্তর থানায় মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। শুধু মামলাই নয় এডভোকেট সেলিম মিয়া কে তার চেম্বার থেকে তুলে নিয়ে গুলি করে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করেন আকতার হোসেন।

এ বিষয়ে এডভোকেট সেলিম মিয়া বলেন,  আমি শংকিত এবং নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি। আমাকে চেম্বার থেকে তুলে নিয়ে  গুলি করে মেরে ফেলতে  আকতার বিভিন্ন মাধ্যমে প্রতিনিয়ত হুমকি দিচ্ছে। একজন আইনজীবী হিসেবে উক্ত আকতার হোসেনের অস্ত্রের লাইন্সেস বাতিল করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category