বুধবার, মার্চ ১৭, ২০২১




মতলব উত্তরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালন

নূরে আলম নূরীঃ চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলায় ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান, কেক কাটা, আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

সকালে উপজেলা পরিষদ কমপ্লেক্সে নির্মিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল এর পক্ষে, উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন, প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়।
এছাড়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে উপজেলার শিশুদের অংশগ্রহণে রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

এরপর ছেংগারচর বাজারে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালেও শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়।
দেশ ও দেশবাসীর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর আয়োজনে উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নেহাশিষ দাশ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস।

সহকারী শিক্ষা অফিসার মাহফুজ মিয়ার পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট রুহুল আমিন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন খান সুফল, সহকারী কমিশনার আফরোজা হাবিব শাপলা, মতলব উত্তর থানার ওসি মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. নুসরাত জাহান মিথেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- মতলব উত্তর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ মাসুদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি শহীদ উল্লাহ প্রধান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান প্রধান, অর্থ সম্পাদক মিজানুর রহমান’সহ উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও সুধীজন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা এম এ কুদ্দুস বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের সৃষ্টি হতো না। বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে তাঁর অবিস্মরণীয় অবদানের কথা উল্লেখ করেন। বঙ্গবন্ধুর অতুলনীয় দেশপ্রেম ও শিশুদের প্রতি গভীর মমত্ববোধের দৃষ্টান্ত অনুসরণের জন্য এবং তাঁর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার জন্য তিনি সবাইকে সম্মিলিতভাবে কাজ করার আহবান জানান। তিনি শিশুকিশোরদের বঙ্গবন্ধুর আদর্শে জীবন গড়ার ও পরবর্তী সময়ে দেশের উন্নয়নে আত্মনিয়োগ করার আহবন জানান।

এরপর দিবসটি নিয়ে আলোচনায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুর জীবনের বিভিন্ন দিক, বিশেষ করে শিশুদের প্রতি গভীর মমত্ববোধসহ তাঁর শৈশব, পারিবারিক জীবন এবং স্কুল জীবনের বিভিন্ন ঘটনা ও দিক তুলে ধরেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category