ষ্টাফ রিপোর্টারঃ মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল রঙ্গুখার কান্দি এলাকায় মেঘনা-ধনাগোদা সেচ প্রকল্পের বরোপীট (ফিশারী)তে মাছ চাষ নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের হামলায় ষাটনল ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন(৪২) গুরুত্বর আহত হয়ে দীর্ঘ ২৫দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় সোমবার রাতে মৃত্যু বরন করে।
 মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত শেষে বাদ মাগরিব ষাটনল আবু মার্কেট বেড়িবাঁধের উপর ২য় দফা জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
মৃত. জাকির হোসেন আসন আলী প্রধানের কান্দির মৃত. জৈন উদ্দিনের ছেলে।
জানাযা নামাজের পূর্বে ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. জাকির হোসেন জীবনাদর্শ নিয়ে আলোচনা করেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি একেএম শরীফ উল্লাহ সরকার, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি আবু সালেহ মো, খোরশেদ আলম, সাধারণ সম্পাদক জিএম ফারুক, আ.লীগ নেতা ভুলন চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মাজহারুল ইসলাম মিজান’সহ নিহ জাকির হোসেনের আত্মীয়-স্বজন।
জানাযায় অন্যান্যদের মধ্যে বিশিষ্ট আইনজীবি এ্যাড. জসিম উদ্দিন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য বোরহান উদ্দিন ডালিম, মতলব ডিগ্রি কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সংসদের জিএস রহমত উল্লাহ চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, এ্যাড. সেলিম মিয়া, সমাজসেবক ভুলু খান, জাকির হোসেন মেম্বার’সহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, এলাকার মুসল্লিগণ উপস্থিত ছিলেন। নিহত জাকির হোসেনের ৩ ছেলে ও ১ মেয়ে।
উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর বিকেলে ষাটনল আসন আলী প্রধানের কান্দির জাকির হোসেন, মো. খোকন, মো. বাবু ও রঙ্গুখারকান্দির সিরাজ সরকার ষাটনল বাবু বাজার থেকে আবু বাজার যাওয়ার পথে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে মাহবুব মোল্লার নেতৃত্বে লাঠি, সোটা, রড, দা, ছেনা ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আক্রমন করে। এ হামলায় ষাটনল আসন আলী প্রধানের কান্দির জাকির হোসেন, মো. খোন, মো. বাবু ও রঙ্গুখারকান্দির সিরাজ সরকার গুরুত্বর আহত হয়।
আহত জাকির হোসেনের ভাগনি রঙ্গুখারকান্দি গ্রামের মুন্নি আক্তার বাদী হয়ে মতলব উত্তর থানায় মাহবুব মোল্লাকে প্রধান আসামী করে মামলা দায়ের করেন।