বুধবার, মার্চ ১৩, ২০১৯




মতলবে তুচ্ছা ঘটনা নিয়ে লঙ্কাকান্ড

স্টাফ রির্পোটারঃ তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের মত ঘটনা ঘটেছে মতলব দক্ষিণ উপজেলায়। এতে শিশুসহ প্রায় ১০জন আহত হয়ে বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। গতকাল ১১ মার্চ দুপুরে উপজেলার পয়ালি গ্রাম ও চরপয়ালি বাজারে এ ঘটনা ঘটে।
সরেজমিনে জানা যায়, ঘটনার আগের দিন বিকালে চরপয়ালি বাজারে পয়ালি গ্রামের পাটোয়ারী বাড়ির কালাম পাটোয়ারীর ছেলে জাকিরের সাথে একই গ্রামের মিয়াজি বাড়ির ছায়েদ মিয়াজীর ছেলে রাসেলের তর্ক হয়। আর এই তর্কের জের ধরে ঘটনার দিন দুপুরে পাটোয়ারী বাড়ির জাকির, আলী আকবরের ছেলে দুলাল, হারুন মিয়াজির ছেলে রবি, আশ্বাদ মিয়ার ছেলে তানভীরের নেতৃত্বে আশপাশের গ্রামের প্রায় শতাধিক যুবক এক যোগে ছায়েদ মিয়াজির বাড়িতে হামলা চালায়। হামলাকারীরা ছায়েদ মিয়াজীর বসত ঘর ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ওই বাড়িতে বেড়াতে আসা ইব্রাহিমের শিশু পুত্র সায়িম (১০), আব্দুল কাশেমের ছেলে রিয়াজ (১৮), তোরাব আলীর ছেলে খোরশেদ (২৫), ছায়েদ মিয়াজীর মেয়ে মুন্নি (২৩) ও অপর পক্ষের কালাম পাটোয়ারীর ছেলে জাকিরসহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। এদের মধ্যে শিশু সায়িমকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল হাসপাতাল প্রেরণ করা হয়।
হামলার ঘটনার খবর পেয়ে মতলব দক্ষিণ থানার এএসআই নজরুল ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে আসে। এ সময় মিয়াজী বাড়ির ছায়েদ মিয়াজীর ছেলে রাসেল ও রাকিব উত্তেজিত হয়ে দল-বল নিয়ে চরপয়ালী বাজারে থাকা কালাম পাটোয়ারীর মালিকানাধীন মার্কেটে হামলা চালিয়ে ৬টি দোকান ভাংচুর করে। পুলিশের উপস্থিতিতে ফের হালমার ঘটনার খবর পেয়ে থানার ওসি একেএমএস ইকবাল ও ওসি (তদন্ত) ইব্রাহিম আরো ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। দোকান ভাংচুরের ঘটনায় পুলিশ ছায়েদ মিয়াজির ছেলে রাকিবকে আটক করলেও অপর পক্ষের কাউকে আটক করতে পারেনি (সংবাদ লিখা পর্যন্ত)।
স্থানায়ী একাধিক ব্যক্তি জানান, পয়ালী গ্রামের পাটোয়ারী ও মিয়াজী বাড়ির মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বহুআগ থেকে ঝগড়া-বিবাদ লেগেই রয়েছে। কয়েক দিন পর পরই তাদের মাঝে মারামারির মত ঘটনা ঘটে।
হামলায় বিষয়ে ছায়েদ মিয়াজী বলেন, তারা দল-বল নিয়ে আমার বসত ও রান্না ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে এবং বাড়িতে থাকা শিশু-নারীদের মারধর করে। আমি এর বিচার চাই।
কালাম পাটোয়ারী বলেন, তারাই আমার ছেলে জাকিরকে মারধর করে এবং মার্কেটের ব্যবসায়ীদের দোকান ভাংচুর ও লুটপাট করে।
এদিকে চরপয়ালি বাজারের ব্যবসায়ী নাজির পাটোয়ারী ও মোশারফ বলেন, তাদের দুই পক্ষের ঝগড়ায় আমাদের দোকান ভাংচুর করা হয়েছে। এই ক্ষতির দায় কে নিবে?
ওসি একেএমএস ইকবাল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। তবে এখন পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় লিখিত অভিযোগ পাইনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category