রবিবার, জুন ২১, ২০২০




বাবা……… প্রফেসর মোঃ জাকির হোসেন জামাল

 

প্রভুর দয়ায় অস্তিত্ব মোর,মায়ের ডিম্ব বাবার শুক্রকিট
ডারউইনের বানর-তত্ত্ব -জন্ম,অযৌক্তিক উদ্ভট,
বাবার চরিত্র-বৈশিষ্ট্যের ধারক,কোষের শক্তিমান জিন
মা-বাবার চেয়ে নাহি কেহ ধরায়,সবচেয়ে আপন-জন।

ছয় ফুট লম্বা সুঠাম দেহ,সততা-সাহসে সেরা ব্যক্তিত্ব
সমাজ-সংস্কারে,সৎ-গুণের বিরল,দীপ্তিময় অস্তিত্ব,
সত্য,সুন্দর,সুবিচার প্রতিষ্ঠায় সর্বদা আপোষহীন
সম্মোহনী শক্তিতে শক্তিমান,প্রতিষ্ঠায় দৃঢ় যা সমীচীন।

সম্পদ-অর্থ সব তুচ্ছ জ্ঞান,সন্তান হবে অনেক বড়
বিপদে-আপদে,জীবন-ঝুঁকিতে আমায় শক্ত করে ধরো,
বিশ্বাস নিয়ে ঈমান নিয়ে তাকওয়া ধারণ করি
খোকার জীবন উজ্জ্বল করো,প্রভু তোমারি নাম স্মরি।

বাবা হলেন শ্রেষ্ঠ শিল্পী,সন্তানের জন্য হিমালয়
খোকার মঙ্গলে স্বপ্নের বুনিয়াদ,নিরলস প্রচেষ্টায়,
আকাশ-জমিনে বিস্তৃত দেহ-মন,অনন্য উচ্চতায়
রোগ-বাঁধা-বিপত্তি,সর্ব্বোচ্চ শক্তিতে সামাল দেয়।

বিচার করতে সত্য-সাক্ষী,প্রমাণ,চিন্তা অতি সূক্ষ্ম
প্রভাবমুক্ত যুক্তি-বিবেক,সৎ-সাহসে পূর্ণ-দক্ষ,
হিন্দু-মুসলিম যুদ্ধ-রোধে দায়িত্বশীল অসাম্প্রদায়িক মন
স্বাধীনতা যুদ্ধে শত-যোদ্ধার আশ্রয়,শুদ্ধ তোমার চেতন।

মানবসেবা-সমাজ কল্যাণে কঠিন ন্যায়-বিচারক
ধানের প্রকল্প,সর্ব্বোচ্চ উৎপাদন,সম্মানে শ্রেষ্ঠ কৃষক,
মাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতিত্ব ইংরেজিতে লেটার অর্জন
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে পণ,হয় জয়,নয়তো জীবন বিসর্জন।

মানবসেবায় উত্তম তুমি,মহামহিমের প্রতি ভক্তি
রবের ইচ্ছায় জীবন-যুদ্ধে পেয়েছো অমিত শক্তি,
আমার জীবনে প্রথম দেখা তুমিই সেরা নায়ক
দ্বন্দ্ব-বিরোধ নিষ্পত্তিতে,নেতৃত্বে সম্মুখ সেনা নায়ক।

চশমা লাগেনি পড়তে,ঘড়ি পরতে দেখিনি কোনদিন
সময়-নিয়ন্ত্রণে সূক্ষ্ম-ধীমান,স্পষ্ট-দৃষ্টিতে মহীয়ান,
খাদ্যাভ্যাস,স্বাস্থ্য-বিধি,সচেতনতায় তীক্ষ্ণ-বুদ্ধি
নিজেকে নিজেই স্রষ্টার দয়ায় করেছ আত্মশুদ্ধি।

সন্তানের জন্য এত মায়া-মমতা দিলে পরম দয়াময়
নিজের জীবন বিলিয়ে দিবো,কক্ষনো নয় পরাজয়,
সুস্থ-সুন্দর মানবের তরে, দাও তাঁকে পবিত্র মন
মানবসেবা-জীবে দয়া,করো প্রকৃত মানুষ ও প্রজ্ঞাবান।

আমার জন্য তোমার সকল স্বপ্ন করেছো বিলীন
সন্তানের স্বপ্ন বাস্তবায়ন,কষ্ট-ত্যাগ চির অমলিন,
সৃষ্টিকর্তা শক্তি দিয়েছে,সাহসে-কর্মে বলীয়ান
সারা দিনমান মানব-সেবায় মগ্ন,পরিশ্রম অবিরাম।

ভালো কথা,বিনয়,সৎব্যবহার,সৎকর্মে হও কাণ্ডারী
হে করুণাময়,তোমার রহমতে মানবিকতার দিশারী,
মানুষের তরে আজীবন শান্তি-সেবা,পৃথিবীর মহাবীর,
সহজ-সরল-সাফল্যের পথ,অনুসারী বানাও রাসুলের।

মানুষের মনে কষ্ট দিওনা,ভালোবাসো সকল জীব
উদয়াস্ত,সৎকর্ম,সেবার মননে থাকবে সদা-সজীব,
মহান আল্লাহর শোকরানা নিত্য,নবীর সুন্নত আদায়
জগৎ-জুড়ে খ্যাতি সৌরভ ছড়িয়ে,একদিন চিরবিদায়।

সততা,দয়ামায়া,পবিত্র মন,মহানুভবতা,সদাচার
এতিম-দুঃস্থদের সেবা,প্রতিষ্ঠায় মূল্যবোধ,ন্যায়বিচার,
পঞ্চেন্দ্রিয়ের সুখ বর্জন,অতীন্দ্রিয় সজ্ঞায় আত্মার সুখ
সইতে হবে ভবে,অনেক কষ্ট,অবর্ণনীয় যন্ত্রণা-দুঃখ।

অবিদ্যা-কুশিক্ষা-পরনিন্দা কখনো করোনা স্পর্শ
সুজন-সাথী,মুক্ত মনের মানবদরদীর নাও সংস্পর্শ,
স্রষ্ঠার নির্দেশ মানো,পিতামাতার কৃপায় তোমার রব
পরমের দয়ায় জগৎ-জোড়া হোক আদর্শের কলরব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category