শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৯




বাণিজ্য মেলায় প্রতিবন্ধীদের জন্য বিনামূল্যে বিনোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক: বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেয়ে বিশিষ্ট মনোবিজ্ঞানী সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের অনুপ্রেরণায় ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় প্রতিবারের মত এবারো অটিজম ও প্রতিবন্ধীদের জন্য বিনামূল্যে বিনোদনের সুযোগ করে দিয়েছে সারিকা ফ্যান্টাসি ইমাজিং ওয়ার্ল্ড পার্ক। এই পার্কটির সবগুলো রাইড বিনামূল্যে উপভোগ করতে পারবে অটিজম ও প্রতিবন্ধীরা।

ইতোমধ্যে অটিজম শিশুদের বিনোদনের সুযোগ করে দিয়ে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে এই পার্কটি। প্রতিদিনই অনেক অভিভাবক তাদের প্রতিবন্ধী শিশুদের মেলায় নিয়ে এসে বিনোদনের সুযোগ নিচ্ছেন।

ভিন্নধর্মী এ পার্কটি বাণিজ্য মেলায় ২০১২ সাল থেকে প্রতিবছর চালু রয়েছে। পার্কটির প্রতিষ্ঠাতা মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান পলাশ বলেন, ‘পার্কটি চালুর পর যখন দেখলাম প্রতিবন্ধী শিশুদের কোন বিনোদনের ব্যবস্থা নেই, পার্কের কোন রাইডে উঠতে দেয়া হয় না, তখন তাদের প্রতি সহানুভূতি থেকেই এ উদ্যোগ গ্রহণ করি আমি। অটিজম-প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য রাইডগুলো সম্পূর্ণ ফ্রি করে দেই। মেলায় হাজার হাজার বিজ্ঞাপনের মাঝে প্রতিবন্ধীদের ফ্রি বিনোদনের বিজ্ঞাপন অনেকেরই নজর কাড়ছে। অনেকেই ভিড় জমাচ্ছেন এই পার্কে।’

ডা. সানজিদা ইসলাম নামের একজন অভিভাবক বলেন, ‘আমার একটি ছেলে আছে প্রতিবন্ধী। আমি মেলা আসলে ছেলেকে বাসায় রেখে আসতাম। কারণ ছেলের বিনোদনের কিছু ছিল না। কিন্তু সারিকা ফ্যান্টাসি ইমাজিং ওয়ার্ল্ডের এই আয়োজনের কারণে আমার ছেলেকে নিয়ে মেলায় এসেছি। অন্যান্য শিশুদের সঙ্গে আমার সন্তানও কিছুটা আনন্দের সুযোগ পাচ্ছে। এ জন্য আয়োজকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

গত রবিবার বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সী প্রতিবন্ধীদের জন্য ফ্রি বিনোদনের আয়োজন উদ্বোধন করেছেন। গতবছর মেলায় বর্তমান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মণি পার্কে এসে অটিজম শিশুদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন। এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের পার্কটি পরিদর্শন করেছেন।

এই পার্কটির ভিন্নধর্মী আয়োজনে সহযোগিতা করছে গ্লেয়ার ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, আদি বাংলা, এশিয়ান টেক্সটাইল। মেলা চলাকালীন অটিজম শিশুদের জন্য নানা উপহারের ব্যবস্থা করেছে এই প্রতিষ্ঠানগুলো। বিনামূল্যে অটিজম শিশুদের জন্য বিনোদনের ব্যবস্থা করায় রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো দুইবার এই পার্কটিকে পুরস্কৃত করেছে।

ভিন্নধর্মী এ আয়োজনের প্রেরণার বিষয়ে মাহবুবুর রহমান পলাশ বলেন, ‘আমার পার্কটিতে অটিজম-প্রতিবন্ধী শিশুদের পাশাপাশি ছিন্নমূল শিশুদের জন্য বিনোদন ফ্রি। শিশুরা বিভিন্ন রাইডে উঠতে পেরে যে নিষ্পাপ হাসি দেয় তখন আমার প্রাণ ভরে যায়। এজন্যই আমার আয়োজন। যতদিন পারি আমি অটিজম ও প্রতিবন্ধীদের শিশুদের জন্য কাজ করে যাব। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মেয়ে বিশিষ্ট মনোবিজ্ঞানী সায়মা ওয়াজেদ পুতুলের অটিজমদের নিয়ে নানা কাজ আমাকে উৎসাহ প্রদান করেছে। তার কাজের প্রেরণায় আমি কাজ চালিয়ে যাচ্ছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category