মঙ্গলবার, এপ্রিল ৩০, ২০১৯




বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ জার্সি উন্মোচন

 নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ইংল্যান্ডে ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ শুরু হবে ঠিক একমাস পর। বিশ্বকাপ মিশনে আগামীকাল দেশ ছাড়বেন মাশরাফি মুর্তজারা। সোমবার বিকেলে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে উন্মোচিত হল বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ জার্সি।

সবুজ রঙের নতুন জার্সি অধিনায়ক মাশরাফির হাতে তুলে দেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। এরপর দলের সঙ্গে ফটোসেশনে যোগ দেন বিসিবি পরিচালকরাও। তবে সমালোচনা হচ্ছে জার্সিতে লাল রং না থাকায়। ফটোসেশনে শুধু ছিলেন না দলের সহ-অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

স্টেডিয়ামে যাওয়ার পরও সাকিব ফটোসেশনের সময় উপস্থিত না থাকায় হতাশা প্রকাশ করেছেন বিসিবি সভাপতি। এবারের বিশ্বকাপ জার্সি নিয়ে কৌতূহল ছিল সবার। যে জার্সি গায়ে বিশ্বকাপের মঞ্চে আলো ছড়াবেন মাশরাফিরা সেটা নিয়ে আগ্রহ থাকাই স্বাভাবিক। জাতীয় দলের জন্য হোম ও অ্যাওয়ে ভিত্তিক দুটি জার্সি হয়। লাল-সবুজের দল বলা হলেও এবার মূল জার্সিতে লাল রঙের কোনো ছাপ নেই। দলের দ্বিতীয় জার্সির রং আবার লাল।

লাল জার্সির বুকে গাঢ় সবুজ আছে, সেটির ওপর লেখা ‘বাংলাদেশ’। মূল জার্সিতে লাল রং না থাকায় অনেকেই সমালোচনা করেছেন। লাল রং না রাখতে পারায় বিসিবিরও কোনো দায় নেই।

সবুজ রঙের জার্সির পেছনের নম্বরগুলো লাল রং দিয়ে অনুমোদনের জন্য আইসিসির কাছে পাঠিয়েছিল বোর্ড। কিন্তু আইসিসি লাল রং উঠিয়ে দিয়ে জার্সি তৈরি করার কথা জানায়। বিসিবি সূত্রে জানা যায় মোট ২০টি নকশা দেখানো হয়েছিল বোর্ডকে। এর মধ্যে চূড়ান্ত করা হয়েছে দুটি।

এবার আইসিসির নির্দেশনায় অন্যান্য দেশের জার্সিতেও অনেক পরিবর্তন এসেছে। বাংলাদেশ দলের জার্সি নিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেন, ‘জার্সি যা দেখলাম সেটা ভালোই মনে হয়েছে। আর খেলোয়াড়দের মতামত নিয়েই জার্সি বানানো হয়। তারা যখন খুশি আমিও খুশি।’ অধিনায়ক মাশরাফি জানালেন, ‘জার্সি কেমন হল সেটা বিচার করবেন দর্শকরাই। তবে খারাপ হয়নি।’

এদিকে বিশ্বকাপে যাওয়ার আগে সাকিব ফটোসেশনে না থাকায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। হতাশ হয়েছেন বিসিবি সভাপতি। আইপিএলে খেলার জন্য বিশ্বকাপ দলের অনুশীলন ক্যাম্পে ছিলেন না সাকিব। রোববার তিনি দেশে ফিরেছেন। এরপর বিসিবি থেকে জানানো হয় ফটোসেশনে থাকার কথা। বড় টুর্নামেন্টের আগে অফিসিয়াল ফটোসেশনকে সব সময়ই গুরুত্ব দেয়া হয়। কিন্তু সেই ফটোতে নেই সাকিব।

১৫ জনের দলটা দেখাচ্ছে ১৪ জনের! নাজমুল হাসান বলেন, ‘দুঃখজনক (সাকিব না থাকা)। আর কী বলব? আমি এসেই জিজ্ঞেস করেছি সাকিবের কথা। এমন কী আমি বিসিবিতে যখন ঢুকি তখন তাকে ফোন করেছিলাম। কোথায় তুমি? বলল আমি তো চলে এসেছি (বিসিবি ছেড়ে)।’ তিনি বলেন, ‘জাতীয় দল যাচ্ছে একসঙ্গে, ফটোসেশনেও একসঙ্গে থাকবে। এটাই স্বাভাবিক। তাকে আশা করেছিলাম কিন্তু সে আসেনি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category