রবিবার, ডিসেম্বর ১, ২০১৯




পাকিস্তানেই খেলতে হবে বাংলাদেশকে, জানিয়েছে পিসিবি

 

মো. নাছির উদ্দীনঃ বাংলাদেশের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজ অন্য কোথাও সরিয়ে নেবে না পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। পাকিস্তানের মাটিতেই তারা আয়োজন করবে সিরিজটি। গত ২৭ নভেম্বর বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) বিষয়টি সাফ জানিয়ে দিয়েছে পিসিবি।

পাকিস্তানের জিও নিউজ তাদের ওয়েবসাইটে পিসিবির মুখপাত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে এমনটি। সফরের প্রাথমিক পরিকল্পনাও তারা পাঠিয়েছে বিসিবিকে। তবে প্রাথমিক পরিকল্পনা জানানোর ব্যাপারে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, এ-সংক্রান্ত কোনো ই-মেইল তারা এখনও পাননি।

২০০৯ সালের পর থেকে পাকিস্তানে তেমন কোনো আন্তর্জাতিক ম্যাচ হয়নি। সে বছর লাহোরে শ্রীলংকা ক্রিকেট দলকে বহনকারী বাসের ওপর ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট নির্বাসনে। কোনো দেশ পাকিস্তান সফরে না যাওয়ার কারণে গত ১০ বছর মরুর দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতকে তাদের হোম ভেন্যু হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। সেখানেই তাদের হোম সিরিজগুলো আয়োজন করছে পাকিস্তান। তবে কিছুদিন আগে হামলার শিকার সেই শ্রীলংকা দলই পাকিস্তান থেকে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ানডে সিরিজ খেলে এসেছে। আগামী মাসে টেস্ট সিরিজ খেলতে আবারও সেখানে যাবে তারা। শ্রীলংকার সফরের পরই নিজ দেশে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ফেরানোর ব্যাপারে মরিয়া হয়ে উঠেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।
বাংলাদেশ সফরটি ঘরের মাটিতে আয়োজনের পর পাকিস্তান সুপার লিগও (পিএসএল) তারা সেখানে আয়োজন করবে বলে দৃঢ়তার সঙ্গে জানিয়ে দিয়েছে পিসিবি। জিওর কাছে সেটাই তুলে ধরেন পিসিবির এক মুখপাত্র, ‘হোম সিরিজগুলো বিদেশের মাটিতে না খেলার নীতিতে অটল আছি আমরা। বাংলাদেশের আসন্ন সফর নিয়ে প্রাথমিক পরিকল্পনার কাগজপত্র আমরা তাদেরকে (বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড) পাঠিয়ে দিয়েছি। ভেন্যু আর ম্যাচের সূচি এখনও ঠিক হয়নি।’

বাংলাদেশের সফরটি তারা দুটি পর্বে ভাগ করতে চাইছে পিসিবি। প্রথম পর্বে বাংলাদেশ পাকিস্তানে গিয়ে দুটি টেস্ট খেলবে। দ্বিতীয় পর্বে হবে তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। ২০২০ সালের জানুয়ারি কিংবা ফেব্রুয়ারিতে সিরিজটি আয়োজন করতে চাইছে তারা। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল এবং অনূর্ধ্ব-১৬ দলও পাকিস্তান সফর করে এসেছে। নারী ক্রিকেট দল লাহোরের গাদ্দাফি স্টেডিয়ামে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলেছে। আর কিশোরদের ভেন্যু ছিল রাওয়ালপিন্ডি। তারা সফরে যাওয়ার আগে বিসিবির একটি নিরাপত্তা দল পাকিস্তানের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করে আসে। তবে বিসিবির প্রধান নির্বাহী জানিয়েছেন, বাংলাদেশ মূল দল পাকিস্তান যাওয়ার আগে আরও অনেক কিছু বিবেচনা করতে হবে। এখানে সরকারের সিদ্ধান্তও গুরুত্বপূর্ণ। সবকিছু পক্রিয়াধীন থাকলেও এখনও কোনো কিছু চূড়ান্ত হয়নি।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এরই মধ্যে একটি প্রস্তাব দিয়েছে। টি-টোয়েন্টি সিরিজটি পাকিস্তানে আর টেস্ট সিরিজটি যেন মধ্যপ্রাচ্যে আয়োজন করা হয়। তবে নারী দল ও অনূর্ধ্ব-১৬ দলের সফরকে হাতিয়ার হিসেবে দাঁড় করিয়ে এ প্রস্তাব মানতে নারাজ পিসিবি। তাদের বক্তব্য ‘সিরিজের অর্ধেক এক জায়গায়, বাকি অর্ধেক অন্য জায়গায় আয়োজন করা সম্ভব নয়। এ বিষয়ে আসলে চিন্তা করারও সুযোগ নেই। কারণ, এতে করে পাকিস্তান সুপার লিগসহ (পিএসএল) পাকিস্তানে অনুষ্ঠেয় অন্যান্য সিরিজে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজসহ বিভিন্ন দেশের ক্রিকেটাররা খেলবেন। তাহলে জাতীয় দলের পাকিস্তান সফরে সমস্যা কোথায়?

পিসিবি মনে করে, যেহেতু বাংলাদেশের দুটি দল সম্প্রতি পাকিস্তান সফরে গেছে, তাই তাদের পুরুষ দলটির এখানে আসতে কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়।’ পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট দুটি আইসিসি বিশ্বচ্যাম্পিয়নশিপের অংশ। বাংলাদেশ যদি টেস্ট দুটি খেলতে পাকিস্তান না যায় আর পাকিস্তান সিরিজটি আরব আমিরাতে আয়োজন না করে, তাহলে এই সিরিজ থেকে কোনো পয়েন্ট পাবে না বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category