সোমবার, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০




নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ : মাঠে ঝড় তুলতে প্রস্তুত বাংলাদেশের জাহানারা আলম

মো. নাছির উদ্দীন : অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য সপ্তম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাংলার বাঘিনীরা আজ নিজেদের প্রথম ম্যাচে প্রতিবেশী ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামবে।

গত ২১ ফেব্রুয়ারি উদ্বোধনী ম্যাচে ভারত স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে পরাজিত করে শুভ সূচনা করেছে। পক্ষান্তরে বাংলাদেশ নিজেদের প্রথম ম্যাচে আজ শক্তিশালী সেই ভারতেরই মুখোমুখি হবে। সর্বশেষ মোকাবিলায় এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতকে হারিয়েই শিরোপা জিতেছিলো বাংলার বাঘিনীরা।

আজকের এই ম্যাচে বাংলাদেশের পেসার জাহানারা আলমের দিকে চোখ থাকবে সবার। এই বাঘিনীর গতি আর সুইংয়ের জাদুতে প্রস্তুতি ম্যাচে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয় পায় সালমা বাহিনী। সে ম্যাচে চার উইকেট শিকার করেন জাহানারা আলম। বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ক্রিকেটের গ্ল্যামার খ্যাত ক্রিকেটার জাহানারা আলমের দিকে বাড়তি নজর রাখবে প্রতিপক্ষ শিবিরও।

💥 কে এই জাহানারা আলম :
জাহানারা আলম ১৯৯৩ সালের ১ এপ্রিল খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। ডানহাতি মিডিয়াম ফাস্ট বোলার এবং ডানহাতি ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলে থাকেন।

ছেলেবেলায় যখন স্কুলে পড়াশুনা করতেন তখন থেকেই খেলাধুলার শুরু জাহানারার। হ্যান্ডবল, ভলিবল দিয়ে খেলাধুলার জগতে পদার্পণ। অষ্টম শ্রেণীতে পড়ার সময় তিনি খুলনার ক্রিকেটে আসেন । সেটাও বেশ নাটকীয়ভাবে। প্রথম নারী ক্রিকেট দল গড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। যে কারণে স্কুলে স্কুলে ক্রিকেটার খোঁজা শুরু করে বিসিবি।

যদিও ক্রিকেট খেলতেন না জাহানারা আলম। তারপরও তার শারীরিক গড়নের কারণেই স্কুলের শিক্ষক তাকে ক্রিকেটে আনলেন। সেই থেকে জাহানারার ক্রিকেট যাত্রা। সেই যাত্রায় এখনও কোনো বিরতি আসেনি। ব্যাটসম্যান হিসাবে তিনি যাত্রা শুরু করলেও পরে পেসার হিসাবে আত্মপ্রকার করেন। এরপর খুব দ্রুতই নির্বাচকদের নজরে পড়েছিলেন জাহানারা।

সে সময় বাবা-মা তথা পরিবার থেকে ক্রিকেটের ব্যাপারে পর্যাপ্ত উৎসাহ পেলেও প্রতিবেশি কিংবা বাইরের লোকজনের কাছ থেকে অনেক কটু কথা শুনতে হয়েছিল জাহানারাকে। হাল না ছেড়ে সেসব কটু কথাকে প্রশংসার বাণীতে পরিণত করেছেন। সেসব অভিযোগকারীরাই এখন জাহানারাকে তাদের ‘গর্ব’ বলে মনে করেন।

একজন নারী হিসেবে পিছিয়ে পড়তে হবে, এমনটা কখনোই ভাবেননি জাহানারা। তার কাছে ক্রিকেট খেলতে পারাটাই মূল কথা। তাই এই ক্রিকেটের জন্যই সংগ্রাম করেছেন, করেও যাচ্ছেন।

💥 আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ও খেলোয়াড়ী জীবন :
২০১০ সালে চীনের গুয়াংজুতে অনুষ্ঠিত এশিয়ান গেমসের মহিলা ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় চীন জাতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের রৌপ্যপদক জয়ে বড় ভূমিকা পালন করেন জাহানারা।
জাহানারার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে ২০১১ সালের ২৬ নভেম্বর আয়ারল্যান্ড মহিলা ক্রিকেট দলের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।
আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি সংস্করণে অভিষেক হয় ২০১২ সালের ২৮ আগষ্ট ভারত মহিলা দলের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে। ২০১৩ সালে ভারতের বিপক্ষে আহমেদাবাদে চার উইকেট নিয়েছিলেন ২০ রানে।
২০১৫ সালে বাংলাদেশ মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হন জাহানারা আলম।

২০১৮ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের প্রথম নারী বোলার হিসেবে পাঁচ উইকেট নেন জাহানারা আলম। আয়ারল্যান্ড সফরে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি ২০-তে বাংলাদেশের হয়ে সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি।

গতবছর ভারতের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক মহিলা আইপিএলে প্রথম বাংলাদেশী ক্রিকেটার হিসেবে খেলার যৌগ্যতা অর্জন করেন জাহানারা আলম। সেই টূর্নামেন্টের ফাইনাল ম্যাচে বল হাতে দারুণ বোলিং করেছেন জাহানারা। ৪ ওভারে ২১ রান খরচে ২ উইকেট নিয়ে ক্রিকেট প্রেমীদের মন জয় করে নিয়েছেন জাহানারা আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category