সোমবার, এপ্রিল ২০, ২০২০




করোনার ছোবলে দক্ষিণ এশিয়ার কোন দেশ কেমন

মো. নাছির উদ্দীন : বিশ্বের মোট জনসংখ্যার এক পঞ্চমাংশ দক্ষিণ এশিয়ায় বসবাস করেন। প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নতুন রণক্ষেত্র হতে পারে দক্ষিণ এশিয়া বলে আশঙ্কা করেছে বিশেষজ্ঞরা। বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব খারাপ আকার ধারণ করলে এই অঞ্চল কঠিন বিপদের মুখোমুখি হতে পারে। ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপ, নেপাল ও ভুটানেও করোনা আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে।
দক্ষিণ এশিয়ার করোনা পরিস্থিতি :
ভারত : দক্ষিণ এশিয়ায় প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর শীর্ষে আছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ৩৬৫ জন। এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৫২১ জনের এবং সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৪৬৬ জন
পাকিস্তান : ভারতের পর নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণে বেশি আক্রান্ত হয়েছে পাকিস্তানে। সেখানে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ৭ হাজার ৯৯৩ জন এবং মারা গেছেন ১৫৯ জন।
বাংলাদেশ : দক্ষিণ এশিয়ায় নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণের তালিকায় তৃতীয়স্থানে আছে বাংলাদেশ। এখানে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৪৫৬ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৯১ জনের।
আফগানিস্তান : আফগানিস্তানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৯৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩২ জনের
রীলঙ্কা : দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা শ্রীলঙ্কার। এই দেশটিতে করোনায় সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা ২৪৮ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ৭ জন
মালদ্বীপ : সাগর বেষ্টিত এই দেশটিতে মাত্র ৩৪ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন আর এ পর্যন্ত কেউই করোনাভাইরাসে মারা যাননি
নেপাল : নেপালেও করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ জন। করোনায় আক্রান্ত  প্রথম রোগী শনাক্ত হওয়ার পর দেশটি কঠোর বিধি-নিষেধ আরোপ করায় সেখানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এই ভাইরাস। হিমালয় কন্যাখ্যাত নেপালে এখন পর্যন্ত করোনা কারও প্রাণ কাড়তে পারেনি
ভুটান : ভুটানে মাত্র পাঁচজনকে করোনা সংক্রমিত হিসাবে শনাক্ত করা হয়েছে আর এ পর্যন্ত মৃত্যুর কোন খবর পাওয়া যায়নি।
গত বছরের ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহানে শহরে উৎপত্তি হওয়া প্রাণঘাতী কোভিড-১৯ করোনাভাইরাস বর্তমানে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে। সবশেষ হিসাব অনুযায়ী বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২৩ লাখ ৫১ হাজার ১৬৩ এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৭৫ জন। আর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬ লাখ ৬ হাজার ২০৮ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category