রবিবার, ফেব্রুয়ারি ৯, ২০২০




একুশে বইমেলায় আঁখি খানমের প্রথম কবিতার বই ‘সময়ের পাঠশালা’ প্রকাশিত হয়েছে

মো. নাছির উদ্দীন : একজন কবির ও তার কাব্যের সাথে পরিচয় হতে চাইলে কবির পারিপর্শ্বিক অবস্থা সম্পর্কে কিছুটা জ্ঞাত হওয়া জরুরী।উনিশ শতকে একজন বাঙালি দার্শনিক,লেখক,সাহিত্যেকের পরিচয় পাওয়া যায়, তিনি মুহাম্মদ এছাহাক। তার সাহিত্য কীর্তি অবিস্মরণীয় এবং অবিশ্বাস্য রকম উন্নত। ১৯৪০ সালে বঙ্গে যে নূন্যতম ক’জন ইংরেজিতে ডিগ্রিধারী ব্যক্তি ছিলেন তিনি তাদের অন্যতম। সে সময় পত্র-পত্রিকায় তার অজস্র জ্ঞানগর্ভ ও মূল্যবান লেখা প্রকাশ হয়। তিনি আজকের কবির নানা। ড.আবু হেনা মোস্তফা কামাল বাংলাদেশ এবং ওপারের বঙ্গের একজন খ্যাতিমান ব্যক্তিত্ব। গত শতকের পঞ্চাশ দশকে তার যাত্রা শুরু এবং অল্প সময়েই কবি,গীতিকার, প্রযোজক,উপস্থাপক এবং অধ্যাপক হিসেবে সুখ্যাতি অর্জন করেন তিনি।

আজকের আঁখি খানমের মামা ছিলেন তিনি। এভাবেই বয়ে গেছে রক্তে ও মজ্জায় আঁখি খানমের কাব্যচর্চা। বাংলার ফুসফুস চট্টগ্রাম জেলায় ১ অক্টোবর তার জন্ম। বাবা ছিলেন রেলওয়ে কর্মকর্তা। শৈশব ও কৈশোরে বাবর সাথে অনেক স্থান ঘুরতে হয়েছে তাকে। আর এসব স্থানের সুন্দর প্রকৃতি, সাধারণ মানুষের আচরন দেখে আর, সেগুলো নিয়ে লিখতে লিখতে এক সময় তিনি হয়ে উঠেন আঁখি খানম।
দাদার ভিটা পাবনাতে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে অর্থবিদ্যায় সম্মান ও মাস্টার্স ডিগ্রী শেষ করে আবার চট্টগ্রামে থিতু হন। অবসরে কবিতা লিখতে পছন্দ করেন। ভ্রমণ করতে ভীষণ পছন্দ করেন। আর এসব স্থানের বৈচিত্র্যময় জীবন, প্রকৃতি, মানুষ, ঘটনা, এসে কবিকে দোলা দেয়। তখন তিনি কলম নিয়ে লিখতে বসেন। পৃথিবীর জাতীয় ও স্মরণীয় দিনগুলো ও তাকে কবিতা লিখতে আগ্রহ জোগায়। এ কাজটিকে তিনি তার কাব্যিক ধর্ম হিসেবে বিবেচনা করেন। এটি বললে হয়তো ভুল হবে না, তিনি ফেসবুকে বহু সংগঠনের শ্রেষ্ঠ কবি বিবেচিত হয়ে পদকের পাশাপাশি বিভিন্ন সম্মাননাশয় ভূষিত হয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category