মঙ্গলবার, জানুয়ারি ১৯, ২০২১




আবারো স্বর্নপদক পেলেন মতলবের কৃতি সন্তান প্রফেসর জাকির হোসেন জামাল

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ আবারো স্বর্নপদক পেলেন মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের কৃতি সন্তান প্রফেসর মোহাম্মদ জাকির হোসেন জামাল।

কুমিল্লার হাসানপুর শহীদ নজরুল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ জাকির হোসেন জামাল
প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহবুব মোরশেদ স্বর্ণপদক লাভ করেন। শিক্ষায় বিশেষ অবদানের জন্য তাঁকে এই স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ জাকির হোসেন জামাল ইতিপূর্বে শেরেবাংলা (প্রধানমন্ত্রী) স্বর্ণপদক লাভ করেন।প্যান্ডামিক সময়ে দরিদ্র ও মেধাবী ছাত্রদের সাহায্য, সহযোগিতা ও খোঁজখবর নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি ও লেখাপড়ার পরিবেশ উত্তম রাখার জন্য তাঁকে “বিশ্ব মানবাধিকার দিবস”-এ “মাদার তেরেসা মানবাধিকার পুরস্কার”-এ ভূষিত করা হয়। চাঁদপুর জেলাস্থ মতলবের এই মেধাবী ও কৃতি সন্তান জীবনের শুরু থেকে এই পর্যন্ত বিরামহীনভাবে শিক্ষা ও মানবাধিকার কর্ম নিয়েই ব্যস্ত আছেন।

অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহাম্মদ জাকির হোসেন জামাল মতলব উত্তর উপজেলার ফরাজীকান্দি ইউনিয়ন ইন্দুরিয়া গ্রামের সন্তান। তিনি ফরাজীকান্দি ইউনিয়নের প্রয়াত চেয়ারম্যান আলী আকবর গাজীর কৃতি সন্তান এবং প্রায়াত চেয়ারম্যান গাজী তোফায়েল হোসেন এর ভাই।

উল্লেখ্য, এদেশের কীর্তিমান, ক্ষণজন্মা,প্রজ্ঞাবান ও একসময়ের জীবন্ত কিংবদন্তি,পূর্ব পাকিস্তানের প্রথম মুসলিম প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহবুব মোরশেদ ১৯৬১ সালে প্রধান বিচারপতি পদে অধিষ্ঠিত হন।তাঁর মেধা, সততা ও প্রচণ্ড সাহস ও বিভিন্ন ভাষার উপর দক্ষতার কারণে পাকিস্তান সামরিক জান্তা তাঁকে দমিয়ে রাখতে পারেনি।নিজ কর্মকৌশল ও ধীশক্তি দিয়ে দেশপ্রেমিক এই মহান ব্যক্তি সবাইকে পেছনে ফেলে প্রধান বিচারপতির পদ অলংকৃত করেন। তিনি ১৯১১ সালের ১১ই ফেব্রুয়ারী বরিশালের একটি সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।১৯৩৮ সালে তিনি ব্রিটিশ লিংকন ইন থেকে বারেট ল’ ডিগ্রি লাভ করেন এবং তার পূর্বে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থশাস্ত্রে বিএ(সম্মান), এমএ,বিএল উত্তম ফলাফল নিয়ে পাশ করেন।১৯৬১ সালে প্রধান বিচারপতি নির্বাচিত হন।

১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনের একুশ দফা ইস্তেহার প্রথম খসড়া তৈরি করেন।প্রধান বিচারপতি থাকাকালীন ছয় দফাও তাঁরই হাত দিয়ে তৈরি।সামরিক জান্তা(আইয়ুব)যখনই বিভিন্ন আন্দোলনের আন্দোলনকারীদের কারাগারে নিক্ষেপ করতো,তিনি সযত্নে দেশপ্রেমিক হিসেবে তাঁদেরকে রায় দিয়ে মুক্ত করে দেন।সামরিক জান্তার”আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলা”-র প্রতিবাদে প্রধান বিচারপতি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে ইতিহাস সৃষ্টি করেন।১৯৭৯ সালে তিনি পরলোকগমন করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category