রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০




আজ পরমানু শক্তি কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া’র জন্মদিন

মো. নাছির উদ্দীন : বাংলাদেশের খ্যাতনামা পরমাণু বিজ্ঞানী ও পরমাণু শক্তি কমিশনের সাবেক চে য়ারম্যান প্রয়াত ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার ৭৯তম জন্মদিন আজ। তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় মেয়ে ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বামী। পদার্থ বিজ্ঞান ও বহুল পঠিত বিভিন্ন রাজনৈতিক লেখক হিসেবে ড.এম ওয়াজেদ মিয়ার ব্যাপক সুখ্যাতি রয়েছে।

তার ডাক নাম সুধা মিয়া। ১৯৪২ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ফতেহপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম আব্দুল কাদের মিয়া এবং মাতা নাম ময়েজুন্নেসা। তিন বোন ও চার ভাইয়ের মধ্যে তিনি ছিলেন সর্বকনিষ্ঠ। তিনি চককরিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপ্ত করার পর, রংপুর জিলা স্কুল থেকে ডিসটিনকশনসহ প্রথম বিভাগে মেট্রিকুলেশন পাশ করেন।

১৯৫৬ সালে রংপুর জিলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করার পর ১৯৫৮ সালে রাজশাহী সরকারি কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাশ করেন ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া। তারপর ১৯৬২ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে এমএসসি পাশ করেন। ১৯৬৭ সালে লন্ডনের ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞানে অধ্যায়নরত অবস্থায় রাজনীতির সাথে সংশ্লিষ্ট হতে শুরু করেন। ১৯৬১ সালে ফজলুল হক হলের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগ থেকে সহ-সভাপতি নির্বাচিত হন ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে এমএসসি পাশ করার পর ১৯৬৩ সালে তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তানের লাহোরে আণবিক শক্তি কমিশনে চাকরিতে যোগ দেন। ১৯৬৭ সালে লন্ডনের ডারহাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি লাভের পর দেশে ফিরে একই বছরের ১৭ নভেম্বর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে বিয়ে করেন।

স্বৈরশাসনবিরোধী আন্দোলনের কারণে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া কিছুদিন কারাবরণ করেন। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং তার আগে ও পরের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়া উপস্থিতি ছিল উল্লেখ করার মতো। ড. ওয়াজেদ মিয়া আণবিক শক্তি কমিশনের চেয়ারম্যান হিসেবে ১৯৯৯ সালে অবসর গ্রহণ করেন।

২০০৯ সালের ৯ই মে বিকেল ৪টা ২৫ মিনিটে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ৬৭ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বাংলাদেশের উত্তরবঙ্গে ড. এম এ ওয়াজেদ মিয়ার জন্মস্থান রংপুরে অবস্থিত বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আধুনিক বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণার স্বপ্নদ্রষ্টা ও প্রাণপুরুষ এবং আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশিষ্ট পরমাণু বিজ্ঞানী হিসেবে তার স্মৃতিকে স্মরণীয় করে রাখতে ড. ওয়াজেদ রিসার্চ ইনস্টিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হয়। এছাড়া ঢাকায় অবস্থিত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিজ্ঞান গবেষণার জন্য দক্ষিণ এশিয়ার সর্ববৃহত বিজ্ঞানাগার, এম এ ওয়াজেদ মিয়া বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category