বুধবার, নভেম্বর ২৫, ২০২০




আগামী বছরের এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষাও পিছিয়ে যাচ্ছে

শিক্ষা প্রতিবেদকঃ করোনার প্রভাবে আগামী বছরের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষাও নির্ধারিত সময়ে নেয়া সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বুধবার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি সংক্রান্ত সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলন, আগামী বছর যাদের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা দেয়ার কথা, তাদের জন্য তিন মাসে শেষ করা যায় এমন একটি সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রণয়ন করা হয়েছে। তাদের তিন মাস ক্লাস করিয়ে পরীক্ষা নেয়া হবে। সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের আলোকে আমরা তাদের তিন মাস ক্লাস করাতে চাই। সে কারণে হয়তো এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা দুই-এক মাস পিছিয়ে যাবে।

এছাড়াও চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে তিনি বলেন, এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফল বিশেষজ্ঞরা তাদের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। এসএসসি ও জেএসসির রেজাল্ট নিয়েই এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হবে। তবে এসএসসির ফল ৭৫ শতাংশ ও জেএসসি ২৫ শতাংশ গুরুত্ব পেতে পারে। এছাড়া সব বিষয়ে তো ক্লাস্টার করা যাবে না। তবে বিশেষজ্ঞরা এ বিষয়ে মতামত দিয়েছেন। তার আলোকেই ফলাফল প্রকাশ করা হবে।

এসময় ডিসেম্বরের মধ্যেই চলতি বছরের এইচএসসির ফলাফল প্রকাশ করা হবে বলে জানান তিনি।

চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে নেয়া গেলেও করোনার কারণে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হয়নি। গত বছরগুলোয় ১ ফেব্রুয়ারি থেকে এসএসসি ও সমমান এবং ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা হয়ে আসছে। কিন্তু করোনার কারণে আগামী বছর তা পিছিয়ে যাচ্ছে।

করোনার কারণে গত ১৭ মার্চ থেকেই বন্ধ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বাতিল হয়েছে এইচএসসি ও সমমান, পঞ্চম শ্রেণির প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি এবং অষ্টম শ্রেণির জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা।

অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জানান, এবার কোনো বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না। নভেম্বর-ডিসেম্বর এই দুই মাসে ৩০ কর্মদিবসে এনসিটিবির সিলেবাসের ভিত্তিতেই হবে মূল্যায়ন। এর বাইরে নেয়া যাবে না কোনো পরীক্ষা। করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করবে সামনের সব শিক্ষাকার্যক্রম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category